আজ ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার কিছু টিপস

Sharing is caring!

পুরাতন  ল্যাপটপ কেনার আগে কিছু বিষয় জেনে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী। প্রথমে যে বিষয়টি লক্ষ্য করতে হবে তা হলো কোন কাজের জন্য ল্যাপটপটি ব্যাবহার করবেন। আপনার কাজ শুধু ওয়ার্ড প্রসেসিং সফটওয়্যার , আই৭ প্রসেসর আর ১৬ জিবি র‍্যামের ল্যাপটপ সিমাবদ্ধ নয়।   ল্যাপটপ যদি ভালো মানের না হয় তাহলে এই কনফিগারেশন  আপনার কখনোই কাজ আসবে না, শুধু টাকার অপচয় ছাড়া আর কিছুই হবে না। তাই পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে জেনে নিন কিছু টিপসঃ-

১।ক্যাশ মেমো দেখে ল্যাপটপ কেনাঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে অবশ্যই ক্যাশ মেমো দেখে কেনা উচিৎ। ক্যাশ মেমোর সাথে ল্যাপটপের সিরিয়াল মিল আছে কি না? যদি ক্যাশ মেমো দেখে কিনেন তাহলে বুঝতে পাবেন যে ল্যাপটপটি নতুন, পুরাতন কিংবা চোরাই  কিনা। ল্যাপটপের সিরিয়ালের সাথে ব্যাটারি, চার্জার অ্যাডাপ্টরসহ সকল ডিভাইসের সিরিয়াল মিল থাকে তাহলে সেটা আপনার জন্য ভালো।

২।ডিসপ্লেঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে ল্যাপটপের ডিসপ্লে অবশ্যই ভালো ভাবে পরিক্ষা করে নিতে  হবে। ল্যাপটপের ডিসপ্লেতে ছোট বড় ডট বা দাগ থাকতে পারে। এই দাগ কোন এক সময় বড় হয়ে ডিসপ্লে নষ্ট করে ফেলে। তাই কেনার আগে ডিসপ্লেতে মাইক্রোসফ্যটের সাদা পেজ চালু করে দেখতে পারেন যে ডিসপ্লেতে কোন ডট বা দাগ আছে কি না।

৩।অপারেটিং সিস্টেমের লাইসেন্সঃ 

কোন ধরনের অপারেটিং সিস্টেম ল্যাপটপের মধ্যে ব্যবহার করা হয়েছে তা জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যা ল্যাপটপ কিনবেন তার অপারেটিং সিস্টেম ফ্রি ক্র্যাক না প্রো সেটা জেনে নেওয়া ভালো। কারণ অরিজিনাল অপারেটিং সিস্টেমের দাম হবে ১০ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা আর ক্রাক অপারেটিং সিস্টেমের দাম মাত্র ৪০ টাকা যেটা একটা সিডি ডিস্কের মধ্যে সিমাবদ্ধ। যদি ল্যাপটপে প্রিমিয়াম অপারেটিং সিস্টেম দেওয়া থাকে তাহলে সহজেই আপনি বুঝতে পারবেন যে অপারেটিং সিস্টেমের লাইসেন্স আছে কি না।

৪।ক্যামেরাঃ

ল্যাপটপের ক্যামেরা একটি গুরুত্বপূর্ণ ডিভাইস। অনেক সময় দেখা যায় যে ডিসপ্লের উপর থাকা ক্যামেরা নষ্ট বা ক্যামেরা ডিসপ্লেতে সাপোর্ট করে না। যদি এমন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে বিভিন্ন রকমের সমস্যায় পরতে হতে পারে।  শুধুমাত্র ডিভাইসের সমস্যা থাকলে সেটা পরিবর্তন করে নেওয়া যাবে আর যদি মাদারবোর্ডের সম্যার কারণে এই সমস্যা আসে তাহলে সেই ল্যাপটপ কিনে মহাবিপদে পরবেন।

৫।ওয়াই-ফাইঃ

বর্তমানে ল্যাপটপে ইন্টারনেট চালানোর মূল হচ্ছে ওয়াই-ফাই। অনেক সময় দেখা যায় যে ল্যাপটপে ওয়াই-ফাই কানেকশন সংযোগ করা যায় না। যদি সেখানে ওয়াই-ফাই না থাকে তাহলে মোবাইল হটস্পট  চালু করেও চেক করে নিতে পারেন।

৬।ব্যাটারীঃ

ল্যাপটপের অরিজিনাল ব্যাটারিতে চার্জ ভালো থাকে। তাই পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে খুব ভালো ভাবে লক্ষ রাখতে হবে যে ব্যাটারি অরিজিনাল নাকি ডুপ্লিকেট। ল্যাপটপের সিরিয়ালের সাথে ব্যাটারির সিরিয়াল মিলালে সঠিক তথ্য পেয়ে যাবেন। ব্যাটারির বয়স কত দিন এবং চার্জ হতে কত সময় লাগবে সব খুটিনাটি ক্রেতার কাছ থেকে জেনে নিবেন।

৭।চার্জিং এডাপ্টরঃ

ল্যাপটপ চার্জ করার জন্য একটি ভালমানের এডাপ্টরের প্রয়োজন। যদি এডাপ্টর অরিজিনাল হয় তাহলে আপনার ল্যাপটপের চার্জ তারাতারি হবে। আলাদাভাবে এডাপ্টর কিনলে তা ভালো ভাবে দেখে নিতে হবে যে আউটপুটে সঠিক ভাবে ভোল্টেজ ও অ্যাম্পিয়ারের সরবরাহ দিতে পারছে কিনা।

৮।ল্যাপটপের বডিঃ

ল্যাপটপের বডি ভালো হলে স্বাভাবিক ভাবে বুঝে নিতে হিবে যে ল্যাপটপটি অনেকটাই ভালো। বডিতে কথাও ভাঙ্গা, আচরের দাগ বা আঘাতের দাগ থাকে তাহলে এর অভ্যন্তরীণ সমস্যাও থাকতে পারে। ফলে অনেক অসৎ ব্যবসায়ী এ সমস্যাগুলো গোপন করে ল্যাপটপ বিক্রি করে থাকে এতে করে ক্রেতা পরবর্তিতে সমস্যায় পরে যায়।

৯।কী-বোর্ডঃ

পুরাতন ল্যাপটপের ক্ষেত্রে সবেচেয়ে বড় রকমের সমস্যা হয়ে থাকে কী-বোর্ডে। যা স্বাভাবিক ভাবে বুঝা যায় না কিন্তু কাজ করার সময় এটি কাজের বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করে। তাই ল্যাপটপ কেনার আগে ভালো এক একটি করে বাটন চেক করে নেওয়া উচিৎ।

১০।ল্যাপটপের পোর্টঃ

অনেক সময় ল্যাপটপের পোর্টের সমস্যা থাকে যেটা খালি চোখে দেখে বুঝে উঠা কঠিন। সকল পোর্ট সব সময় কাজ করে না। ব্যবহারের সুবিধার জন্য সকল পোর্ট সঠিক ভাবে কাজ করে কিনা সেটা ভালোভাবে চেক করে নেওয়া আপনার জন্য ভালো।

উপরোক্ত বিষয় গুলো জেনে পুরাতন ল্যাপটপ কিনলে ভালো মানের একটি ল্যাপটপ পেতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
Oporadh Bichitra